নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি রমজানের বাজার:দাম বাড়ছে দ্বিগুণ

Sohag Sheikh ১১ মে, ২০১৯ জাতীয়
img

গ্রামে কৃষকের কাছ থেকে যে দামে নিত্যপূণ্য কেনা হচ্ছে সেটি রাজধানীতে এসে দুই থেকে তিনগুণ বেশি দামে বিক্রয় হচ্ছে। আবার রাজধানীতে হাত বদল হলে আরও দ্বিগুণ দাম বাড়ছে নিত্যপণ্যের। ফলে সিটি কর্পোরেশন বিভিন্ন উদ্যোগ নিলেও রমজানের বাজার নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি।

শনিবার (১১ মে) রাজধানীর পাইকারি সবজির বাজার কারওয়ান বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, এ বাজারে সব সবজিই বিক্রি হয় পাল্লা (৫ কেজি) হিসেবে। বাজারটিতে প্রতি পাল্লা মরিচ পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৩০ টাকায়। এ হিসেবে প্রতি কেজির দাম ২৪-২৫ টাকা। পাইকারি বাজারের ২০০ গজ দূরের খুচরা বাজারেই এক পোয়া মরিচ বিক্রি হচ্চে ১৫-২০ টাকায়, একই দাম রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে। ফলে হাত বদল হলে নিত্যপণ্যের দাম দ্বিগুণ হচ্ছে।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা য়ায়, নরসিংদীতে কৃষক পর্যায়ে মান ও জাতভেদে বেগুনের মণ বিক্রি হয় ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা, প্রতি কেজি ১৩ থেকে ১৮ টাকা। কিন্তু এ বেগুন পাইকারিতে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে পাল্লা বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৪০ টাকায়, কেজি ২৪ থেকে ৩০ টাকা। আরও এক হাত ঘুরে সে বেগুন ক্রেতাদের কিনতে হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। চাষী পর্যায় থেকে সংগ্রহ করা ১০ টাকার টমেটোও পাইকারিতে ১৫ থেকে ১৬ টাকা এবং খুচরা ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নরসিংদীর জঙ্গি শিবপুর, বারৈচা ও পালপাড়া পাইকারি সবজির বাজারে প্রতি মণ শসা ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, কেজি ১৩ থেকে ১৫ টাকা; করলার মণ ৮০০ টাকা, কেজি ২০ টাকা, কাঁকরোলের মণ ৯০০ থেকে ১ হাজার টাকা, কেজি ২৩ থেকে ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কারওয়ানবাজারে পাইকারিতে প্রতি কেজি শসা ২০ থেকে ২২ টাকা এবং কাঁকরোল ২৮ থেকে ৩০ টাকা এবং ও করলা বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা দামে। আর খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে যাথাক্রমে ৪০ থেকে ৫০, ৬০ থেকে ৭০ এবং ৫০ থেকে ৬০ টাকা দামে।

আবার ইফতারে ব্যবহৃত ধনেপাতা বাদ নেই এ তালিকা থেকে। শীত মৌসুমে প্রতি মণ ধনেপাতা কৃষক পর্যায়ে দাম ছিল ২০০ টাকার মতো। এখন রাজধানীর বাজারে প্রতি কেজি ধনেপাতা বিক্রি হচ্ছে একই দামে। কাওয়ানবাজারে প্রতি কেজি ধনেপাতার পাইকারি দাম রয়েছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। তবে খুচরা বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ২০০ টাকা দামে।

কারওয়ান বাজারের সবজির পাইকার মো. নজরুল ইসলাম বলেন, যে কোন সবজির পাইকারি ও কৃষক পর্যায়ের দামে তেমন পার্থক্য থাকে না। পণ্য কেনা ও পরিবহন খরচ বাদে কেজিতে ১ থেকে ২ টাকা লাভেই পাইকাররা পণ্য বিক্রি করে দেন। দাম যা বাড়ানোর তা বাড়ায় খুচরা দোকানিরা। পাইকারি বাজারে প্রতি কেজিতে ১ টাকা বাড়লেই তারা খুচরায় কেজিতে ১০ টাকা বাড়িয়ে দেন।

আলুর পাইকারি বিক্রেতা মাসুদ রানা বলেন, তিনি প্রতি পাল্লা আলু বিক্রি করছেন ৭৫ টাকা দামে, কেজি ১৫ টাকা। কৃষক পর্যায়ে যা কেনা পড়েছে ১২ টাকায়। তবে খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২০-২২ টাকায়।

এদিকে মুদি পণ্যের পাইকারি ও খুচরা দামে রয়েছে বেশ ফারাক। বিশেষ করে রাজধানীর শ্যামবাজারের পাইকারি দামের প্রায় দ্বিগুণ দামে খুচরা ও মুদি দোকানে বিক্রি হচ্ছে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পেঁয়াজ। শ্যামবাজারে শনিবার প্রতি কেজি ভালো মানের দেশি পেঁয়াজ ১৭ থেকে ১৯ টাকা এবং আমদানি করা পেঁয়াজ ১৪ থেকে ১৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে; কিন্তু খুচরা বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩৫ থেকে ৩৬ টাকায়, আর আমদানি করা বড় পেঁয়াজের দাম ৩০ টাকা।

শ্যামবাজারের পেঁয়াজের পাইকারি ব্যবসায়ী ও আমদানিকারক ওয়াহিদ হাসান রনি বলেন, বাজারে এখন পেঁয়াজের প্রচুর সরবরাহ রয়েছে। এর সিংহভাগই দেশি পেঁয়াজ। সবচেয়ে ভালো মানের পেঁয়াজও বিক্রি হচ্ছে ১৯ টাকা প্রতি কেজি। বরং বাজারে প্রচুর সরবরাহ থাকলেও সে অনুপাতে বিক্রি নেই। সে হিসেবে পাইকারি দামের দ্বিগুণ দামে খুচরা বাজারে বিক্রি হওয়ার কোন কারণ থাকতে পারে না।

পাইকারি ও খুচরা দামের পার্থক্য সম্পর্কে কনজুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, দামের এ পার্থক্য হয় মধ্যস্বত্বভোগীদের কারণে। তাদের অতি মুনাফার কারণেই খুচরায় দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়। আবার খুচরা ব্যবসায়ীদের মধ্যে কম বিক্রি করে বেশি লাভের মানসিকতাও দাম বাড়ার অন্যতম কারণ।

এজন্য ভোক্তাকে সচেতন হতে হবে। এর মধ্যে গরুর মাংসসহ বেশকিছু পণ্য রয়েছে যেগুলোর দাম অনেক চড়া। এখন ভোক্তা যদি গরুর মাংস কেনার পরিমাণ কমিয়ে দেয় বা বেশি দামে পণ্য না কেনে, তবে বাধ্য হয়ে বিক্রেতাকে দাম কমিয়ে দিতে হবে। তবে সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের নজরদারি বাড়ানোই এর সবচেয়ে কার্যকর উপায় হতে পারে।

সম্পর্কিত পোস্ট

আমাদের ফেইসবুক

রাশিফল

  • sagittarius

    মেষ

  • sagittarius

    বৃষ

  • sagittarius

    মিথুন

  • sagittarius

    কর্কট

  • sagittarius

    সিংহ

  • sagittarius

    কন্যা

  • sagittarius

    তুলা

  • sagittarius

    বৃশ্চিক

  • sagittarius

    মকর

  • sagittarius

    কুম্ভ

  • sagittarius

    মীন

  • sagittarius

    ধনু

  • মেষ (২১ জানুয়ারী-২৮ ফ্রেরুয়ারী)

    ব্যক্তিগত যোগাযোগ সাফল্যের দিগন্তে পৌঁছে দিতে পারে। দীর্ঘ দিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে পারে। প্রাণের মানুষ প্রাণের পরে পদাঘাত করতে পারে, সতর্ক থাকুন।আপনি সব ব্যথা সয়ে নিতে পারেন এটাও পারবেন।

  • বৃষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)

    এসপ্তাহে হাতে যখন বেশ কিছু টাকা পয়সা আসবে তখন টাকাটা একটু কাজে লাগাবার চেষ্টা করুন। অতিথি, বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে মিলন ঘটবে। পরিবারের কেউ অসুস্থ হতে পারে।  মনের লেনাদেনা খারপ যাবেনা। 

  • মিথুন (২২ মে-২১ জুন)

    এসপ্তাহে আপনার দেহ মনের খবর ভাল। মনন চর্চায় নতুন উৎকর্ষে পৌঁছোবেন।

    পরিবার পরিজনের খোঁজ খবর রাখুন। সপ্তাহ জুড়ে ভাও যাবে সময়। 

     

     

  • কর্কট (২২ জুন-২২ জুলাই)

     

    খরচাটা একটু কমান। পূর্বের কোনো কর্মের ফল ভোগ করতে হতে পারে।। স্বল্প দূরত্বে ভ্রমণ হতে পারে। ছোট ভাইবোনের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাবে। প্রয়োজনে তাদের সমর্থন ও সহযোগিতা পাবেন।

  • সিংহ (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)

     

    এসপ্তাহে টাকা পয়সা প্রাপ্তি আপনাকে উৎফুল্ল রাখবে। পরিবার বন্দু-বান্ধব উপকারে এগিয়ে আসবে। সাবধানে চলাচল করুন। একটু অসাবধানতার কারণে দুর্ঘটনায় পতিত হতে পারেন। 

  • কন্যা (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)

    নতুন কাজে যুক্ত হতে পারেন। পেশাগত দিক ভালো যাবে। কর্মক্ষেত্রে সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকবে। আয় উপার্জন বৃদ্ধির যোগ রয়েছে। 

  • তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)

    ধর্ম কর্মে মন নিবেশ হবে। ভাগ্যোন্নয়ণে প্রবীণ কারও দিকনির্দেশনা লাভ করতে পারেন। কর্মক্ষত্র থাকবে আপনার পক্ষে। বুঝে শুনে চললে ব্যবসা ভাল যাবে। 

  • বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)

    কাজের চাপ বাড়বে। কাজ ফেলে না রেখে রুটিন অনুসারে করার চেষ্টা করুন।মানসিক চাপ পাত্তা দেবেন না। নিজেকে সংযত রাখুন, অন্যথায় সামাজিক বদনামের শিকার হতে পারেন। আনন্দময় সময় কাটানোরও সুযোগ পেতে পারেন।

  • মকর (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)

    শরীর খুব একটা ভালো নাও যেতে পারে। আহারে বিহারে সাবধানতা অবলম্বন করুন। কোনো ভুল সিদ্ধান্তের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে। কর্মক্ষেত্রে দায় দায়িত্ব বাড়বে, বিতর্ক এড়িয়ে চলুন। 

  • কুম্ভ (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

    দূরদর্শী চিন্তাভাবনা আপনাকে সতেজ ও প্রাণবন্ত রাখবে। গবেষণামূলক কর্মকাণ্ডের জন্য প্রশংসিত হতে পারেন।  সাময়িকভাবে শরীর কম ভালো যেতে পারে। 

  • মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

    আজ আপনার সেই ইচ্ছেটা  পূর্ণ হতে পারে। প্রেম ও দাম্পত্য বিষয়ে বোঝাপড়া সহজ হবে। কেউ কেউ স্থাবর সম্পত্তিতে বিনিয়োগ করতে পারেন।  ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে।

  • ধনু (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)

    দাম্পত্য সম্পর্ক মোটামুটি ভালো যাবে। পারিবারিক সুখশান্তি বজায় থাকবে। কোনো বিষয়ে চুক্তি হতে পারে। কোনো ধরনের প্রতিযোগীতার সম্মুখীন হতে পারেন। বিশেষ কোনো দক্ষতার জন্য প্রশংসিত হতে পারেন।

পাঠক মতামত

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের কাছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি মামাবাড়ির আবদার। তার এ বক্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?
ভোট দিয়েছেন জন
হ্যাঁ
না
মন্তব্য নেই