কাশ্মিরে চিন-পাকিস্তান যৌথ সেনা টহল

Sohag Sheikh ২৫ জুলাই, ২০১৬ আন্তর্জাতিক
img

কাশ্মিরে পাকিস্তান অংশের দখল রক্ষা নিয়ে চিন্তিত ইসলামাবাদ। কাশ্মীরকে পাকিস্তানের অংশ করার জন্য অপেক্ষা করছেন বলে জানিয়ে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ বলেন,‘‘কাশ্মীর এক দিন পাকিস্তানের অংশ হবে। আমরা সেদিনের জন্য অপেক্ষা করছি।’’ জবাবে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা বলেন, ‘‘ভারতবাসীর পক্ষ থেকে জানাতে চাই পাক প্রধানমন্ত্রীর কাশ্মীর দখলের  স্বপ্ন জগৎ সংসারের অন্তিম দিন (কেয়ামাৎ) পূরণ হবে না। কাশ্মীর ভারতের অংশ, ভারতেই থাকবে। ’’অর্থাৎ সম্পর্কের তিক্তার বহিঃপ্রকাশ! এরই মধ্যে কাশ্মিরে চিন-পাকিস্তান যৌথ সেনা টহল,

  জঙ্গি কার্যকলাপ রুখতে বদ্ধপরিকর ভারত পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি ঘাঁটিগুলিতে আচমকা অভিযান চালাতে পারে বলে আশঙ্কা ইসলামাবাদের। তেমন পরিস্থিতি হলে ভারতের মোকাবিলা করতে কতটা সক্ষম হবে পাকিস্তান? সংশয় রয়েছে পাক সেনার মধ্যেই। তাই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এ বার চীনা সেনাকে সঙ্গে নিয়ে যৌথ টহলদারি শুরু করল পাকিস্তানের সেনা।

পাকিস্তান এবং চীন বলছে, এই যৌথ টহলদারি ভিন্ন কারণে। চিনের পশ্চিমাংশে জিনজিয়াং প্রদেশ থেকে অনেকে ইরাক এবং সিরিয়ার দিকে চলে যাচ্ছে আইএস-এ যোগ দিতে। তাদের রুখতেই নাকি এই যৌথ টহলদারি।

 

চিনের জিনজিয়াং প্রদেশে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য। উইঘুর সম্প্রদায়ের মানুষরাই মূলত ইসলামের অনুগামী সেখানে। এই উইঘুরদের সঙ্গে চিনা কমিউনিস্ট সরকারের বিরোধও দীর্ঘ দিনের। জিনজিয়াং-এর স্বাধীনতার দাবিতে অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়া উইঘুর জঙ্গিরা পশ্চিম চিনের বিভিন্ন অংশে নাশকতাও চালায়। কোথাও হামলা চালিয়ে তারা পশ্চিম সীমান্ত পেরিয়ে প্রতিবেশী কিরঘিজস্তান বা তাজিকিস্তানে আশ্রয় নেয়, এমন অভিযোগও দীর্ঘ দিনের। সেই উইঘুর মুসলিমদের মধ্যেই নাকি এ বার আইএস-এ যোগ দেওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। সম্প্রতি অন্তত ১১৪ জন উইঘুর যুবক জিনজিয়াং থেকে ইরাক বা সিরিয়ায় গিয়ে আইএস-এ সামিল হয়েছে বলে একটি মার্কিন রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে। চিনের সরকার উইঘুর মুসলিমদের ধর্মাচরণে বাধা সৃষ্টি করে বলেই উইঘুরদের মধ্যে সন্ত্রাসবাদী প্রবণতা বাড়ছে বলেও নিউ আমেরিকা ফাউন্ডেশনের ওই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যমও জানিয়েছে, অন্তত ১০০ জন জিনজিয়াং থেকে আইএস রাজত্বে চলে গিয়েছে। তবে উইঘুরদের ধর্মাচরণে বাধা দেওয়া হয় বলে চিন স্বীকার করেনি।

 

চিন এবং পাকিস্তান বলছে, জিনজিয়াং থেকে গিলগিট-বাল্টিস্তান (পাক অধিকৃত কাশ্মীরের অংশ) হয়ে উইঘুর যুবকরা ইরাক-সিরিয়ার দিকে যাচ্ছে। তাই গিলগিট-বাল্টিস্তানে চিন-পাকিস্তান যৌথ টহলদারি চালাবে। কিন্তু এই দাবি ভারত নস্যাৎ করে দিচ্ছে। ভারতীয় গোয়েন্দারা বলছেন, জিনজিয়াং প্রদেশ থেকে ইরাক বা সিরিয়ায় যারা যাচ্ছে, তাদের পক্ষে অনেক সহজ পথ হল কিরঘিজস্তান বা তাজিকিস্তান হয়ে যাওয়া। জিনজিয়াং-এ নাশকতা চালিয়ে এমনিতেই ওই সব দেশে ঢুকে পড়ে উইঘুর জঙ্গিরা। ফলে সীমান্ত পেরিয়ে ওই সব দেশ হয়ে মধ্য এশিয়ার দিকে যাত্রা করা তাদের পক্ষে অনেক সুবিধাজনক। সে পথ তাদের অনেক পরিচিত। জিনজিয়াং থেকে গিলগিট-বাল্টিস্তান হয়ে পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইরান হয়ে ইরাক-সিরিয়ায় যাওয়া অনেক শক্ত। কারণ প্রথমত, উইঘুর জঙ্গিরা চিনা সরকারের বিরুদ্ধে কাজ করছে। তাই পাকিস্তান পেরিয়ে যাওয়া তাদের পক্ষে খুব শক্ত। পাক সরকার কোনও ভাবেই উইঘুরদের প্রশ্রয় দেবে না। দ্বিতীয়ত, আইএস-এর বিরুদ্ধে আফগানিস্তান এবং ইরানেও এখন সক্রিয়তা তুঙ্গে। তাই ওই দুই দেশের মধ্যে দিয়ে ইরাক-সিরিয়ার দিকে যাওয়ার চেষ্টা করাও আত্মহত্যা করার সামিল। তার চেয়ে কিরঘিজস্তান বা তাজিকিস্তান হয়ে কাস্পিয়ান সাগরের দিক দিয়ে ইরাক-সিরিয়ায় যাওয়া অনেক নিরাপদ।

নয়াদিল্লি বলছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে যৌথ টহলদারি শুরু করার অজুহাত খুঁজছিল চিন-পাকিস্তান। ভারত যে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি শিবিরগুলির বিষয়ে অন্য রকম কৌশল নিতে পারে, সে আশঙ্কা পাকিস্তান অনেক দিন ধরেই করছে। পাকিস্তানের দখলে থাকা ওই অঞ্চলে ভারত কোনও সাফল্য পেলে, পাক সেনার প্রবল সম্মানহানি হবে। তাই চিনকে জড়িয়ে নেওয়া। ভারতীয় সেনাকে বার্তা দেওয়া, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে কোনও পদক্ষেপ করলে সরাসরি চিনের সঙ্গে সঙ্ঘাতে জড়াতে হতে পারে। চিন-পাক অর্থনৈতিক করিডরের নিরাপত্তার অজুহাতে আগেই কয়েক হাজার সেনা পাক অধিকৃত কাশ্মীরে পাঠিয়ে দিয়েছিল চিন। তখনই ভারত এর তীব্র বিরোধিতা করেছিল। এ বার পাক সীমান্তরক্ষীদের সঙ্গে চিনা সেনার যৌথ টহলদারিও শুরু হল। চিনের এই পদক্ষেপকে অবৈধ বলেই মনে করছে নয়াদিল্লি। এর মোকাবিলায় পাল্টা রণকৌশল সাজানোও শুরু হয়ে গিয়েছে।

 

সম্পর্কিত পোস্ট

আমাদের ফেইসবুক

রাশিফল

  • sagittarius

    মেষ

  • sagittarius

    বৃষ

  • sagittarius

    মিথুন

  • sagittarius

    কর্কট

  • sagittarius

    সিংহ

  • sagittarius

    কন্যা

  • sagittarius

    তুলা

  • sagittarius

    বৃশ্চিক

  • sagittarius

    মকর

  • sagittarius

    কুম্ভ

  • sagittarius

    মীন

  • sagittarius

    ধনু

  • মেষ (২১ জানুয়ারী-২৮ ফ্রেরুয়ারী)

    ব্যক্তিগত যোগাযোগ সাফল্যের দিগন্তে পৌঁছে দিতে পারে। দীর্ঘ দিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে পারে। প্রাণের মানুষ প্রাণের পরে পদাঘাত করতে পারে, সতর্ক থাকুন।আপনি সব ব্যথা সয়ে নিতে পারেন এটাও পারবেন।

  • বৃষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)

    এসপ্তাহে হাতে যখন বেশ কিছু টাকা পয়সা আসবে তখন টাকাটা একটু কাজে লাগাবার চেষ্টা করুন। অতিথি, বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে মিলন ঘটবে। পরিবারের কেউ অসুস্থ হতে পারে।  মনের লেনাদেনা খারপ যাবেনা। 

  • মিথুন (২২ মে-২১ জুন)

    এসপ্তাহে আপনার দেহ মনের খবর ভাল। মনন চর্চায় নতুন উৎকর্ষে পৌঁছোবেন।

    পরিবার পরিজনের খোঁজ খবর রাখুন। সপ্তাহ জুড়ে ভাও যাবে সময়। 

     

     

  • কর্কট (২২ জুন-২২ জুলাই)

     

    খরচাটা একটু কমান। পূর্বের কোনো কর্মের ফল ভোগ করতে হতে পারে।। স্বল্প দূরত্বে ভ্রমণ হতে পারে। ছোট ভাইবোনের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাবে। প্রয়োজনে তাদের সমর্থন ও সহযোগিতা পাবেন।

  • সিংহ (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)

     

    এসপ্তাহে টাকা পয়সা প্রাপ্তি আপনাকে উৎফুল্ল রাখবে। পরিবার বন্দু-বান্ধব উপকারে এগিয়ে আসবে। সাবধানে চলাচল করুন। একটু অসাবধানতার কারণে দুর্ঘটনায় পতিত হতে পারেন। 

  • কন্যা (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)

    নতুন কাজে যুক্ত হতে পারেন। পেশাগত দিক ভালো যাবে। কর্মক্ষেত্রে সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকবে। আয় উপার্জন বৃদ্ধির যোগ রয়েছে। 

  • তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)

    ধর্ম কর্মে মন নিবেশ হবে। ভাগ্যোন্নয়ণে প্রবীণ কারও দিকনির্দেশনা লাভ করতে পারেন। কর্মক্ষত্র থাকবে আপনার পক্ষে। বুঝে শুনে চললে ব্যবসা ভাল যাবে। 

  • বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)

    কাজের চাপ বাড়বে। কাজ ফেলে না রেখে রুটিন অনুসারে করার চেষ্টা করুন।মানসিক চাপ পাত্তা দেবেন না। নিজেকে সংযত রাখুন, অন্যথায় সামাজিক বদনামের শিকার হতে পারেন। আনন্দময় সময় কাটানোরও সুযোগ পেতে পারেন।

  • মকর (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)

    শরীর খুব একটা ভালো নাও যেতে পারে। আহারে বিহারে সাবধানতা অবলম্বন করুন। কোনো ভুল সিদ্ধান্তের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে। কর্মক্ষেত্রে দায় দায়িত্ব বাড়বে, বিতর্ক এড়িয়ে চলুন। 

  • কুম্ভ (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

    দূরদর্শী চিন্তাভাবনা আপনাকে সতেজ ও প্রাণবন্ত রাখবে। গবেষণামূলক কর্মকাণ্ডের জন্য প্রশংসিত হতে পারেন।  সাময়িকভাবে শরীর কম ভালো যেতে পারে। 

  • মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

    আজ আপনার সেই ইচ্ছেটা  পূর্ণ হতে পারে। প্রেম ও দাম্পত্য বিষয়ে বোঝাপড়া সহজ হবে। কেউ কেউ স্থাবর সম্পত্তিতে বিনিয়োগ করতে পারেন।  ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে।

  • ধনু (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)

    দাম্পত্য সম্পর্ক মোটামুটি ভালো যাবে। পারিবারিক সুখশান্তি বজায় থাকবে। কোনো বিষয়ে চুক্তি হতে পারে। কোনো ধরনের প্রতিযোগীতার সম্মুখীন হতে পারেন। বিশেষ কোনো দক্ষতার জন্য প্রশংসিত হতে পারেন।

পাঠক মতামত

রোহীঙ্গা ইস্যু নিয়ে মায়ানমার বাংলাদেশের সাথে বৈঠকে বসতে চায়, আপনি কি মনে করেন মায়ানমার সহজে বাংলাদেশ থেকে রোহীঙ্গাদের ফিরিয়ে নিয়ে যাবে ?
ভোট দিয়েছেন জন
হ্যাঁ
না
মন্তব্য নেই